অনলাইন/অফলাইন প্রাইভেসী (যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের জন্য)

আমেরিকাতে হরেক রকমের বিজনেস রয়েছে। আপনার অজান্তেই আপনার সকল তথ্য হাজারো কোম্পানীর কাছে বিক্রয় হয়ে থাকে। আপনার নাম, ঠিকানা, আপনি সাধারণত কি কি কিনে থাকেন ক্রেডিট কার্ড দিয়ে, আপনি টিভিতে কোন চ্যনেল বেশি পছন্দ করেন ইত্যাদি সব তথ্য এক কোম্পানী আরেক কোম্পানীর কাছে বিক্রি করে। এরপর তারা আপনার নাম্বারে কল দিয়ে বা চিঠি পাঠিয়ে তাদের পণ্য কেনার জন্য উৎসাহিত করে। আপাতদৃষ্টিতে মনে হবে আপনার তো কন ক্ষতি হচ্ছেনা এসবে। কিন্তু কেন আপনি আপনার ব্যক্তিগত তথ্যগুলো হাজারো কোম্পানীর কাছে দেবেন? এটাকে কিভাবে বন্ধ করা সম্ভব? আপনারা হয়ত লক্ষ্য করেছেন, আপনি একদিন ধরুন amazon.com এ গিয়ে নোকিয়া বা মোটোরলা ফোন সম্পর্কে ব্রাউজিং করলেন, কয়েকটি মডের দরদাম দেখলেন। ভালো কথা। কদিন পরে আপনি ফেসবুকে লগিন করেই খেয়াল করলেন যে আপনাকে মোবাইল সম্পর্কিত বিজ্ঞাপন দেখানো হচ্ছে। ফেসবুক কিভাবে জানলো যে আপনি মোবাইল সম্পর্কে আগ্রহী? এগুলো হচ্ছে এগ্রেগেটেড টার্গেটেড এডভার্টাইজিং। আমেরিকাতে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আপনার তথ্য মোবাইল এবং ক্রেডিট কার্ড কোম্পানী থেকে হাজারো কোম্পানীতে চলে যায়। এটাকে প্রতিহত করার জন্য আমেরিকার সরকার জনগন কে কয়েকটি অপশন দিয়েছে। উল্লেক্ষ্য, এখানে প্রথম সাইটটি সবার কাজে আসবে, এমনকি যারা বাংলাদেশ থাকেন, তারাও এটিতে গিয়ে কিছুটা প্রাইভেসি রক্ষা করতে পারেন।

১। http://www.aboutads.info/choices/ – আপনার কম্পিউটারে হাজারো “কুকিজ” রয়েছে। এগুলো দ্বারা বিভিন্ন ওয়েবসাইট আপনাকে ট্র্যকিং করে। কিছু কুকিজ সাথে সাথে মুছে যায়, কিছু রয়ে যায় অনেকদিন। এই কুকিজগুলো বিভিন্ন ওয়েবসাইট আপনার কম্পিউটারে সেভ করে রাখে। আপনি যেকোন সাইটে গেলেন, সেই সাইটের মাধ্যমে কিন্তু অন্য আরেকটি সাইট আপনার কম্পিউটারে কুকি সেভ করে নিতে পারে যদিও সেই সাইট টা কি তা আপনি মোটেই জানেন না। এগুলোকে থার্ড পার্টি কুকি বলা হয়। যাই হোক, উপরোক্ত লিঙ্কে গিয়ে আপনি আপনার ব্রাউজারে উল্লেখ করে দিতে পারেন যে এসব থার্ড পার্টি কুকি আপনার কাছে অনাকাংখিত এবং এগুলো যাতে ভবিষ্যতে আর সেভ না নয়, তা সিলেক্ট করে দিন। আগেই বলেছি এখানে বাংলাদেশি সহ সবাই এখানে যেতে পারেন। এছাড়াও প্রতিটি ব্রাউজার সেটিংস এ থার্ড পার্টি কুকি নিয়ে সেটিংস আছে যা সাধারনত প্রাইভেসী সেকশন এ পাবেন। আপনার কম্পিউটারে যদি ওপেরা, ক্রোম বা ফায়ারফক্স থাকে, মনে রাখবেন প্রতিটি ব্রাউজার দিয়ে অন্তত একবার হলেও এই লিঙ্কে যেতে হবে। (পড়ুন – ইন্টারনেট ব্রাউজারে প্রাইভেসী রক্ষার উপায়)

২। https://www.donotcall.gov/ – আমেরিকার মোবাইল কোম্পানি থেকে অন্যরা আপনার নাম, ঠিকানা, নাম্বার নিয়ে আপনাকে অনবরত কল দিতেই থাকে। এসব প্রতিহত করার জন্য আপনি এখানে গিয়ে আপনার ফোন নাম্বার রেজিস্ট্রেশন করতে পারেন। এখানে রেজিস্ট্রেশন করার পরে টেলিমার্কেটাররা আর আপনাকে আইনানুযায়ী কোন কল দিতে পারবেনা। যদি দেয়, আপনি এদের বিরুদ্ধে নালিশ করতে পারবেন একি সাইটে।

৩। https://www.optoutprescreen.com/ – আরেকটি মাধ্যমে মার্কেটিং কোম্পানীরা আপনার তথ্য নিয়ে থাকে যেটা হলো আপনার ক্রেডিট কার্ড ব্যুরো থেকে। কয়েকটি ক্রেডিট ব্যুরো রয়েছে যেগুলো আপনার ক্রেডিট সম্পর্কিত তথ্য অন্যন্যদের কাছে বিক্রি করে। আপনার তথ্য নিরাপদ রাখতে এখানে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করুন।

Share with:


Leave a Reply

Connect with:



Your email address will not be published. Required fields are marked *