ভার্চুয়ালাইজেশনের ফ্রী টুলস

পড়ূন – ভার্চুয়ালাইজেশন কি এবং কেন?

ভার্চুয়ালাইজেশন কি, কেন, কিভাবে ইত্যাদি নিয়ে একটু পরে লিখছি। কিন্তু আপাতত এখানে কিছু টুলস এর তালিকা দিচ্ছি যেগুলো আমাদের কাজে আসবে পরবর্তী টিউটোরিয়ালে। এখানে আমি চারটি টুলস লিস্ট করলাম। দুটি সার্ভার বেসড, দুটি ডেস্কটপ বেসড। মানে হলো, সার্ভার বেসড টুলস এর জন্য ডেডিকেটেড পাওয়ারফুল ডেস্কটপ বা সার্ভার হলে ভাল হয়। আর যে দুটো ডেস্কটপ বেসড, সেগুলো উইন্ডোজের ভেতরেই চলবে তবে যথেস্ট সিপিইউ, আর র‍্যম থাকলে বেশ হয়। এসএসডী থাকলে তো কোন কথাই নেই। সবকিছু হবে অত্যন্ত দ্রুত।

ডেস্কটপ টুলস (এগুলো উইন্ডোজের মধ্যেই ইন্সটল হবে) – এর সুবিধা হচ্ছে, এই ভার্চুয়াল সিস্টেমগুলো খুবি পোর্টেবল। তবে সার্ভারের মত ফ্লেক্সিবল না। এছাড়াও এগুলোর জন্য কোন মেশিন ডেডিকেট করা লাগেনা। আপনার যদি আলাদা সিস্টেম  না থাকে যেটিকে সার্ভারে পরিনত করা যাবেনা, তাহলে এখান থেকে একটি ইন্সটল করুন।

VMWare Workstation Player – রেজিস্টার করে এই ফ্রী সফটওয়্যারটি নামিয়ে নিন।

VirtualBox – এটিও ফ্রি। সরাসরি নামানো যাবে।

সার্ভার টুলস (ফুল ডেডিকেটেড সিস্টেম লাগবে, ডেস্কটপ কে সার্ভারে কনভার্ট করতে হবে) – এসবে কোন ইন্টারফেস থাকেনা। অর্থাত এগুলো ইন্সটল করে, নেটওয়ার্কে যুক্ত করে পরে অন্য কোন ডেস্কটপ বা ল্যপটপ থেকে এই সার্ভারগুলো ম্যনেজ করতে হবে। যেসব ভার্চুয়াল সিস্টেম ইন্সটল হবে, সেগুল সার্ভারেই থাকবে।

vSphere Hypervisor -এটি ভিএমওয়্যার ভিস্ফিয়ার হাইপারভাইজর।

Microsoft HyperV – মাইক্রোসফট হাইপার-ভি।

Share with:


One thought on “ভার্চুয়ালাইজেশনের ফ্রী টুলস

  1. Pingback: ভার্চুয়ালাইজেশন কি এবং কেন? | টেকবাংলাটেকবাংলা

Leave a Reply

Connect with:



Your email address will not be published. Required fields are marked *